অতিরিক্ত গ্যাস্ট্রিক এর লক্ষণ

500.00৳ 

সরাসরি কিনতে ফোন করুন: 01622913640

>> সারাদেশে ক্যাশ অন ডেলিভারি করা হয় !

>> ডেলিভারি খরচ ঢাকার মধ্যে ৬০ ঢাকার বাইরে  ১০০ টাকা !

>> প্রোডাক্ট হাতে পেয়ে চেক করে মূল্য পরিশোধ করতে পারবেন !

>> ডেলিভারি খরচ সাশ্রয় করতে একসাথে কয়েকটি প্রোডাক্ট অর্ডার করুন !

999 in stock

SKU: (24) মোটা হওয়ার ঔষধ গুড হেলথ Categories: , Tag:

Description

অতিরিক্ত গ্যাস্ট্রিক এর লক্ষণ , সম্পর্কে অনেকে আমাদের কাছে জানতে চেয়ে থাকেন তাই আজকের আর্টিকেল থেকে আমি আপনাদেরকে জানিয়ে দেবো অতিরিক্ত গ্যাস্ট্রিকের লক্ষণ সম্পর্কে এর জন্য অবশ্যই আমাদের আর্টিকেলটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পড়তে হবে তো চলুন শুরু করা যাক। আরো পড়ুন: ছেলেদের মেয়েদের কন -ডম গুপ্ত –  স্থান মেয়েদের পু -শি  কিনতে এখনই কিনুন

অতিরিক্ত গ্যাস্ট্রিক এর লক্ষণ

গ্যাস্ট্রিক সমস্যার সাধারণ লক্ষণগুলির মধ্যে গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা হলে পেটে ব্যথা, বদহজম, বমি বমি ভাব, খিদেমন্দা, গা গোলানো, মাথা ব্যথা এসব লেগে থাকে। খিদে পেলেই বমি পাওয়া, মাথা ঘোরা এসব গ্যাস্ট্রিকের প্রাথমিক উপসর্গ। খিদে পেলেও খেতে পাচ্ছেন না, খেলেই পেট ব্যথা, সব সময় মনে হচ্ছে গলার কাছে খাবার আটকে আছে, ওজন কমতে শুরু করেছে এমন লক্ষণে সতর্ক হয়ে যেতে হবে রয়েছে:

গ্যাস্ট্রিক সমস্যার সাধারণ লক্ষণগুলির মধ্যে রয়েছে :

  • স্ফীত হত্তয়া
  • Belching
  • অম্বল
  • বমি বমি ভাব
  • পেটের অস্বস্তি
  • অনিয়মিত অন্ত্রের গতিবিধি

গ্যাস্ট্রিক বুকে ব্যাথা দূর করার উপায়

বুকে ব্যাথা দূর করার অনেক উপায় রয়েছে। এ উপায়গুলো যদি আপনারা মেনে চলেন তাহলে অবশ্যই এই রোগ থেকে নিরাময় পাবেন।

১. আপনি যদি গ্যাস্ট্রিকের ব্যথা অনুভূত করেন তাহলে যদি আপনার হাতের কাছে গুর থেকে থাকে তাহলে এক টুকরো গুড় মুখে দিয়ে না চিবিয়ে চুষে খান এতে করে দেখবেন আপনার গ্যাস্ট্রিকের ব্যাথা কিছুক্ষণের মধ্যে কম হয়ে যাচ্ছে।

২. অধিক তেল যুক্ত খাবার এড়িয়ে চলুন। যদি তেলযুক্ত খাবার খান খাবার খাওয়ার পরে টক দই খাবার চেষ্টা করুন এতে করে আপনার খাবার পাকস্থলীতে ভালোভাবে হজম হবে।

৩. অনেক সময় আমাদের দেখা যায় আমরা গ্যাস্ট্রিকের ব্যথা অনুভব করলে অ্যান্টাসিডনামের যে ট্যাবলেটটি রয়েছে সেটি খাওয়া থেকে বিরত থাকুন দরকার পড়লে আপনারা এই ট্যাবলেট টি না খেয়ে আদা চিবিয়ে খান।

৪. আপনার যদি প্রচণ্ড পরিমাণে গ্যাস্ট্রিকের ব্যথা অনুভূত হয় তাহলে আপনারা একটি প্রাচীনকালের পদ্ধতি অনুসরণ করতে পারেন। আমরা সবাই পুদিনা পাতা কে চিনি, তো আপনারা চাইলে এই পুদিনা পাতার রস করে খেয়ে ফেলতে পারেন আপনার গ্যাস্ট্রিকের ব্যথা কমে যাবে।

৫. উপরের পদ্ধতিগুলো ছাড়াও আপনারা লবঙ্গ চিবাতে পারেন এতে করে অনেক টা ব্যথা কমে যাবে।

গ্যাস্ট্রিক হলে কি কি খাওয়া যাবে না

  • মুখি কচুর তরকারি খেতে পছন্দ করেন অনেকে। যাদের গ্যাসের সমস্যা আছে, তাঁদের বেশি সবজি না খাওয়াই ভালো। এতেও পেটের সমস্যার পাশাপাশি কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা দেখা দেয়।
  • গরমের সময় এঁচোড় আনা হয় প্রায় সব বাড়িতেই। খেতে সুস্বাদু হওয়ার কারণে একে গাছপাঁঠা নামেও ডাকা হয়ে থাকে। তবে সুস্বাদু ও পুষ্টিকর এই সবজি গ্যাস্ট্রিকের রোগীদের জন্য একেবারেই ভালো নয়।
  • রাজমা চাওল বা রাজমা দিয়ে পরোটা, রুটি আজকাল বেশিরভাগ বাঙালি বাড়িতেই রাঁধা হয়। পঞ্জাবি এই খাবারটি খেতে যেমন সুস্বাদু তেমনই পুষ্টিকর। এতেও প্রোটিনের মাত্রা ছোলার মতোই পাবেন। কিন্তু গ্যাসের সমস্যায় ভুগলে এড়িয়ে যান এটি।
  • গরমে পাওয়া না গেলেও, শীতের সবজি মুলোও কিন্তু বেশ ভয়ানক গ্যাসট্রিকের রোগীদের জন্য। এটি গ্যাসের সমস্যা আরও বাড়িয়ে দিতে পারে। পেট ব্যথা, পেট ফুলে যাওয়া-সহ একাধিক সমস্যা দেখা দেয় মুলো খেলে।

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “অতিরিক্ত গ্যাস্ট্রিক এর লক্ষণ”

Your email address will not be published. Required fields are marked *