জরায়ু কেটে ফেললে কি সমস্যা হয়

2,250.00৳ 

সরাসরি কিনতে ফোন করুন: 01622913639

>> সারাদেশে ক্যাশ অন ডেলিভারি করা হয় !

>> ডেলিভারি খরচ ঢাকার মধ্যে ৬০ ঢাকার বাইরে  ১০০ টাকা !

>> প্রোডাক্ট হাতে পেয়ে চেক করে মূল্য পরিশোধ করতে পারবেন !

>> ডেলিভারি খরচ সাশ্রয় করতে একসাথে কয়েকটি প্রোডাক্ট অর্ডার করুন !

309 in stock

Description

জরায়ু কেটে ফেললে কি সমস্যা হয় সম্পর্কে অনেকেই আমাদের কাছে বিস্তারিত জানার আগ্রহ প্রকাশ করে থাকেন তাই আজকের আর্টিকেলটি সাজিয়েছি এমন ভাবে যে আর্টিকেল এর মাধ্যমে আপনারা জানতে পারবেন জরায়ু না থাকলে অথবা জরায়ু কেটে ফেললে কি কি সমস্যা সম্মুখীন হতে হতে পারে এবং আপনার জরায়ু কেটে ফেলার পরে আপনি পরবর্তীতে কি কি পদ্ধতি গ্রহণ করে আপনাকে বেঁচে থাকতে হবে এবং কি নিয়ম অনুসরণ করতে হবে এ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা।পেনিস কত বড় হতে পারে

 

জরায়ু কেটে ফেললে কি সমস্যা হয়

জরায়ু যার ল্যাটিন শব্দ “ইউটেরাস” বা গর্ভ। মানুষসহ বেশিরভাগ স্তন্যপায়ী প্রাণীদের জননতন্ত্রের একটি প্রধান হরমোন-প্রতিক্রিয়াশীল স্ত্রী গৌণ-জননাঙ্গ। মানুষের ক্ষেত্রে, জরায়ুর নিম্নপ্রান্ত, জরায়ুমুখ, যোনিপথে উন্মুক্ত হয় এবং এর ঊর্ধ্বাংশ, ফান্ডাস, ডিম্বনালীর সঙ্গে সংযুক্ত থাকে। গর্ভকালে এই জরায়ুর মধ্যেই গর্ভস্থ ভ্রূণ বড়ো হতে থাকে। জরায়ু এমন একটি স্ত্রী অঙ্গ যার মাধ্যমে কোনো মহিলা বাচ্চা ধারন করার ক্ষমতা রাখে। কিন্তু এই জরায়ু যদি কেটে ফেলা হয় তাহলে কি কি সমস্যা হতে পারে?

নারীদের মাসিক হওয়ার মূল কারণ ইস্ট্রোজেন নামের একটি হরমোন। এই হরমোন নারীর প্রজনন স্বাস্থ্য চক্রের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। নারীদের ওভারি বা ডিম্বাশয়ে প্রতিমাসে যে ডিম্ব উৎপাদন হয় এবং সন্তান জন্ম দেওয়ার জন্য নারীর শরীর যেভাবে প্রস্তুত হয় তার পেছনেও রয়েছে এই হরমোনের ভূমিকা। কিন্তু বয়স হতে থাকলে নারীদের শরীরে ইস্ট্রোজেন হরমোনের উৎপাদন কমে যেতে থাকে। এই হরমোনই প্রজননের পুরো প্রক্রিয়া নিয়ন্ত্রণ করে।

জরায়ু কেটে ফেলার পর নারীদের মাসিক পুরোপুরিভাবে বন্ধ হয়ে যায়। এতে নারীদের শরীরে নানা প্রভাব দেখা দেয়। যেমন রাতের বেলায় ঘাম হওয়া, ঘুম না হওয়া, দুশ্চিন্তা হওয়া, মনমরা ভাব এবং যৌনতায় বা মিলনে আগ্রহ হারিয়ে ফেলা। এছাড়া মূত্রথলিতে সমস্যা এবং যোনিপথ শুষ্ক হয়ে যাওয়ার ঘটনাও দেখা দিতে পারে। পুরুষের মেয়েদের সেক্স বৃদ্ধি করার ভেষজ  ঔষধ কিনতে ক্লিক করুনএখনি কিনুন 

জরায়ু না থাকলে সহবাস করা যায়

জরায়ু অর্গাজমে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। তবে জরায়ু কেটে ফেলার পর মহিলাদের ক্লিটোরেসিস বা জি স্পট সিমুলেশন অর্গাজম করাতে পারে। তাই জরায়ু কেটে ফেলার পর যে কোনো মহিলা সহবাস করতে পারবেন। তবে জরায়ু কেটে ফেলার কতদিন পর সহবাস করা যাবে? এটা অবশ্য রোগীর কন্ডিশনের উপর ভিত্তি করে সময় কম বেশি হতে পারে।

তাই জরায়ুট না থাকলে যে আপনি সহবাস করতে চান সেটি অবশ্যই শরীরের কন্ডিশন দুপুর নির্ভর অথবা ভিত্তি করে আপনি এটি করতে পারবেন এবং সে ক্ষেত্রে আপনি একটি গাইনি ডাক্তারের শরণাপন্ন হয়ে চিকিৎসা নিয়ে আপনি তার সাথে শরণাপন্নায় চিকিৎসা নিয়ে এই পরবর্তী পদক্ষেপ নিতে পারেন।

এছাড়া পাশাপাশি এর জন্য সেক্সোলজিস্ট ডক্টর এ অথবা চর্ম যৌন দপ্তর যিনি আছেন তার সাথে আপনি পরামর্শ করে এই বিভাগের যে প্রশ্নটা আছে সেটি আপনি নিয়ে নিতে পারেন।

তাই অবশ্যই আপনি যখন জরায় পুরোপুরি কেটে ফেলতে চান তখন অবশ্যই আপনাকে এই সিদ্ধান্তগুলো মাথায় নিয়েই কাটতে হবে যে পরবর্তীতে আপনার এই সমস্যা সমাধান করতে হতে পারে এবং এই সমস্যার সম্মুখীন হতে পারে।

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “জরায়ু কেটে ফেললে কি সমস্যা হয়”

Your email address will not be published. Required fields are marked *