প্রোল্যাকটিন হরমোন কেন বাড়ে

750.00৳ 

সরাসরি কিনতে ফোন করুন: 01622913640

>> সারাদেশে ক্যাশ অন ডেলিভারি করা হয় !

>> ডেলিভারি খরচ ঢাকার মধ্যে ৬০ ঢাকার বাইরে  ১০০ টাকা !

>> প্রোডাক্ট হাতে পেয়ে চেক করে মূল্য পরিশোধ করতে পারবেন !

>> ডেলিভারি খরচ সাশ্রয় করতে একসাথে কয়েকটি প্রোডাক্ট অর্ডার করুন !

999 in stock

SKU: (17) ৩০ মিনিটের মতো সেক্স করার ভিগা স্প্রে Categories: , Tag:

Description

প্রোল্যাকটিন হরমোন কেন বাড়ে প্রলেকটিন হরমোনের মাত্রা বেশি থাকে। তাই বুকের দুধ পান করানো মায়েদের মাসিক বন্ধ থাকে বেশ কিছুদিন। এটাকে প্রাকৃতিক জন্মনিয়ন্ত্রণও বলে। কারণ, এ সময় মেয়েদের মাসিক হয় না, ডিম্বস্ফুটনও হয় না। ফলে আবার সন্তান ধারণের সম্ভাবনা কম থাকে। আরো পড়ুন: ছেলেদের মেয়েদের কন -ডম গুপ্ত –  স্থান মেয়েদের পু -শি  কিনতে এখনই কিনুন

প্রোল্যাকটিন হরমোন কেন বাড়ে

আমাদের শরীরে অনেক ধরনের হরমোন আছে, এর মধ্যে একটি হলো প্রোলাক্টিন হরমোন, যা পিটুইটারি গ্রন্থি থেকে নিঃসৃত হয়। রক্তে প্রোলাক্টিন হরমোনের মাত্রা বেড়ে গেলে একে বলা হয় হাইপারপ্রোলাক্টিনেমিয়া। ১ শতাংশ মানুষ এতে আক্রান্ত হয়। গর্ভাবস্থায় এবং বাচ্চা বুকের দুধ খেলে এই হরমোন বাড়তে পারে।

প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার এবং কিছু ওষুধ উচ্চ মাত্রার কারণ হতে পারে। স্ট্রেস, ব্যায়াম এবং এমনকি সেক্স করার কারণে প্রোল্যাক্টিনের সামান্য বৃদ্ধি হতে পারে । সুতরাং, আপনার উপসর্গ এবং চিকিৎসা ইতিহাসের উপর নির্ভর করে, আপনার প্রোল্যাক্টিনের মাত্রা বেশি থাকে কিনা তা দেখতে আপনার প্রদানকারী আপনাকে আবার পরীক্ষা করার পরামর্শ দিতে পারে।

কিন্তু কিছু কারণে বুকের দুধ পান করানো মা ছাড়াও কোনো মেয়ের যদি প্রলেকটিন হরমোনের মাত্রা বেড়ে যায়, তবে দেখা দেয় বিপত্তি। সে ক্ষেত্রে সেই মেয়ের মাসিক বন্ধ বা অনিয়মিত হয়ে যেতে পারে, ডিম্বস্ফুটন বন্ধ হওয়ার কারণে বন্ধ্যত্ব দেখা দিতে পারে, স্তনে টনটনে ব্যথা হতে পারে, এমনকি নতুন মায়েদের মতো দুধ বা তরল নিঃসৃত হতে পারে।

প্রলেকটিন হরমোন বেড়ে যাওয়ার একটি অন্যতম কারণ হলো নানা ধরনের ওষুধ সেবন। অল্প বয়সী তরুণী–কিশোরীদের যেকোনো ওষুধ সেবনের আগে তাই যুক্তিযুক্ত কারণ থাকতে হবে। কারণ, সাধারণভাবে ব্যবহৃত অনেক ওষুধই প্রলেকটিন হরমোন বাড়িয়ে দিয়ে বিব্রতকর পরিস্থিতিতে ফেলতে পারে।

সাধারণ গ্যাস্ট্রিক বা বমির ওষুধ ডমপেরিডন থেকে শুরু করে ঘুমের ওষুধ, বিষণ্নতার ওষুধ, মানসিক রোগের বেশ কিছু ওষুধ, উচ্চ রক্তচাপের ওষুধ ভেরাপামিল, কখনো কখনো জন্মনিয়ন্ত্রণের বড়িও প্রলেকটিন হরমোনের মাত্রা বাড়িয়ে দিতে পারে। ফলে মাসিক অনিয়মিত হয়ে পড়তে পারে বা স্তন থেকে তরল নিঃসৃত হতে পারে। যদি ওষুধটি বন্ধ বা পরিবর্তন করা সম্ভব না হয় (যেমন অ্যান্টিসাইকোটিক), তাহলে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “প্রোল্যাকটিন হরমোন কেন বাড়ে”

Your email address will not be published. Required fields are marked *